Currently set to Index
Currently set to Follow
Pdf Book list 02

স্মৃতিগন্ধা Pdf Download by সাদাত হোসেন

বই: স্মৃতিগন্ধা সাদাত হোসেন Pdf Book Download free download & Review

smriti gonda sadat hossain pdf book

‘স্মৃতিগন্ধা’, এবারের বইমেলায় আসছে সাদাত হোসেনের এ নতুন বইটি।

রিভিউ:

হেমন্তের বিষন্ন সন্ধ্যা।
খানিক আগেই ভুবনডাঙা স্টেশন ছেড়ে সাইরেন বাজিয়ে চলে গেছে সন্ধ্যার ট্রেন। তারপর থেকে অদ্ভুত নৈঃশব্দ্য। সুনসান নীরবতা। একটা হলুদ পাতা হঠাৎ উড়ে এসে পায়ের কাছে পড়তেই ম্লান চোখে তাকায় পারু। কী রুক্ষ্ম, প্রাণহীন চারপাশ! যেন ক্রমশই নেমে আসছে মৃত্যু। গাঢ় অন্ধকার। মুখভার থমথমে আকাশও মিশে গেছে দূরে কোথাও। কিন্তু ওই আকাশটাকে টুপ করে বুকের ভেতর লুকিয়ে ফেলতে খুব ইচ্ছে হয় তার।

এমন আকাশ কি আর কোথাও আছে?
কিংবা এমন মন কেমনের সন্ধ্যা?

ওই যে দূরের গ্রাম, শুকনো খড়ের মাঠ, ভেজা ঘাসের মেঠোপথ? ওই যে নরেন দাদুর ফোঁকলা দাতের হাসি?

ওই যে ভুবনডাঙা নদী?

এই যে সে বসে আছে পুকুর পারে, ওই যে সামনে শান বাঁধানো ঘাট, স্বচ্ছ জলের আয়না, তুলসী তলার মায়া, বাঁশ বাগানের মাথার ওপর চাঁদ।

এমন কি আর কোথাও কিছু আছে?

পারু দীর্ঘশ্বাস ফেলতে গিয়েও লুকায়। মানুষ হওয়ার এই এক যন্ত্রণা, জীবনভর কেবল লুকাতে হয়!

মিহি কুয়াশার ভেতর থেকে গায়ে এসে বেঁধে সূচের ফলার মতো তীক্ষ্ণ হিমেল হাওয়া। জড়সড় চারু ডাকে, ‘দিদি।’

‘হুম?’ সাড়া দেয় পারু।

‘এসব ছেড়ে যেতে তোর ভালো লাগবে?’

‘কই যাবো?’

‘কেনো? তুই শুনিসনি?’

‘কী?’

‘বাবা যে বললো আমাদের জমিগুলো বিক্রির একটা ব্যবস্থা করতে পারলেই আমরা কলকাতা চলে যাবো! ভুবনডাঙার ট্রেন ধরে বর্ডার পর্যন্ত। তারপর সীমানা পার হলেই ভারত। আমরা আর কখনো ফিরে আসবো না দিদি?’

পারু ছোট বোনের দিকে তাকায়। চারুর বয়স চৌদ্দ। তার বছর চারেকের ছোট। মাথা ভর্তি চুল। মা চুপচুপে তেল দিয়ে বেণী করে দিয়েছেন চুলে। সে তাকিয়ে আছে ফ্যাকাশে চোখে।

পারুর হঠাৎ মনে হলো, আচ্ছা, এই বয়সের স্মৃতি কতটা গভীর হয়? আজ থেকে কুড়ি বছর পর কি আজকের এই সন্ধ্যার কথা চারুর মনে থাকবে? কিংবা তার?

‘নাহ।’ পারু ফোঁস করে লুকানো দীর্ঘশ্বাসটা ফেলে।

‘আমরা আর কখনোই ফিরে আসবো না।’

‘কখনোই না?’

‘উহু।’ বলেই উঠে দাঁড়ায় পারু।

তুলশি গাছের তলায় সন্ধ্যা আরতি দিচ্ছে মা। তার পাশেই ঠাকুর ঘর। ওই যে বাঁশের কঞ্চি কেটে বানানো ঠাকুরমার লাঠিটা ওখানে। তার পাশে কাঠের খড়ম। দরজার কাছে জলচৌকি। ঘরের টিনের চালের ওপর ডালপালা ছড়ানো আমগাছ। গোয়াল ঘর থেকে গলগল করে ধূপের গন্ধ বেরুচ্ছে। সন্ধ্যা হলেই মশা তাড়াতে ধূপ জ্বেলে দেন মা। কালো রঙের বড় গাইটা কেমন অসহায়ের মতো তাকিয়ে আছে।

তার চোখ কি ভেজা?

পারু জানে না। তবে সে দু পা এগিয়ে গাইটার গা ঘেসে দাঁড়ায়। হাত বোলাতে থাকে পিঠে। বাবা খদ্দের খুঁজছেন। ভালো দাম পেলেই গাইটা বেচে দিবেন।

তারপর?

কোথায় চলে যাবে কালু?
আর কখনো দেখা হবে না তাদের?

পারুর আচমকা কী যে হয়! সে দুই হাতে গাইটাকে জড়িয়ে ধরে। গাল ঘসতে থাকে পিঠে। এতো কান্না পাচ্ছে কেন তার কে জানে!

এই সবকিছু ছেড়ে সে কোথায় যাবে?
কীভাবে যাবে?

সন্ধ্যার ওই ম্লান অথচ মায়াময় আকাশের দিকে তাকিয়ে পারু ফিসফিস করে বললো,
‘জানি যাচ্ছি ফেলে সন্ধ্যা,
সাথে তোমাকেও স্মৃতিগন্ধা’।

 

smriti ghonda sadat hossain pdf book download করতে আমাদের সাথেই থাকুন।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!