others

mumin jibone hashi bondhon pdf Download & Review

বই: মুমিন জীবনের সময় (মুসলিম মানসে অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের ভাবনা)
লেখক: ইউছুফ আল-কারজাভি
অনুবাদক: তারিক মাহমুদ
প্রকাশক: গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স
প্রচ্ছদ মূল্য: ২০০ টাকা

সময় মানব জীবনে খুবই গুরুত্ব বহন করে। সময়ের সদব্যবহারের মাধ্যমে মানুষ দুনিয়া ও আখিরাতে সফলতা অর্জন করতে পারে। তাই মুমিন হিসেবে পরিচ্ছন্ন সময়ানুবর্তী হওয়ায় ঈমানের দাবী। সময়ানুবর্তী হওয়ার ক্ষেত্রে আগে জানতে হবে সময় কি বা এর সঠিক সংজ্ঞায়ন। একই সাথে কোন পথে ও কোন কাজে সময় ব্যয়ের মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানো যায় সে সম্পর্কে ধারণা সঠিক ধারণা থাকা বাঞ্ছনীয়।

বর্তমান বিশ্বের অন্যতম ইসলামী পন্ডিত ডক্টর ইউসুফ আল কারজাভি মুসলিম মানসে সময়কে প্রোথিত করার লক্ষে এক প্রশংসনীয় উদ্যোগ নিয়েছেন ‘ আল ওয়াকতু ফি হায়াতিল মুসলিম ‘ গ্রন্থ রচনার মধ্য দিয়ে। গ্রন্থটির বাংলা অনুবাদ করেন তারেক মাহমুদ এবং গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স পাঠকদের জন্য ‘মুমিন জীবনে সময়’ নামে গ্রন্থটি প্রকাশ করে।

গ্রন্থের লেখক ইউসুফ আল কারজাভি বর্তমান বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের অন্যতম অভিভাবক এবং ‘ইখওয়ানুল মুসলিমিন’ এর অন্যতম আধ্যাত্মিক নেতা । ছাত্রজীবনে আল্লামা খ্যাত এই পন্ডিত রচনা করেছেন শতাধিক গ্রন্থ। যার মাধ্যমে ইসলামী দৃষ্টিভঙ্গির ভারসাম্যপূর্ণ ব্যাখ্যা প্রদানের পাশাপাশি জাহিলিয়াতের নানা চ্যালেঞ্জের মুখে সৃষ্ট সন্দেহ সংশয় নিরসন রেখেছেন অগ্রণী ভূমিকা।

আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয় হতে উচ্চ ডিগ্রিধারী ইসলামিক স্কলার তারিক মাহমুদ। যিনি কাজ করেছেন অনুবাদ সাহিত্যে। তার প্রথম প্রকাশিত অনুবাদ গ্রন্থ ‘ইসলাম এর ব্যাপকতা’ এবং ‘মুমিন জীবনে সময়’ তার দ্বিতীয় অনুবাদ গ্রন্থ।

মানুষের জীবনের মূল মাপকাঠি সময়। যার মাধ্যমে সফলতা ও ব্যর্থতা নির্ধারিত হয়। এই সময় সম্পর্কে সঠিক ধারণা দিতে ও কিভাবে সময়ের কাজ সময়ে করা যায় বা কোন সময়ে কি করনীয় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে ‘মুমিন জীবনের সময়’ গ্রন্থ গ্রন্থে।সময় সম্পর্কে বলা হয় –
“সময় একটি ধারালো তরবারি যদি তুমি তাকে না কাটো, সে তোমাকে কেটে ফেলবো”।

সময়ের প্রতি যত্নবান হওয়া প্রত্যেক মুমিনের অন্যতম দায়িত্ব ও কর্তব্য। যার জন্য প্রয়োজন সময়ের পরিচর্যা। তাই গ্রন্থে স্থান পেয়েছে কিভাবে সময়ের পরিচর্যার মাধ্যমে সময়কে অর্থবহ করে তোলা যায়, সময় এর বৈশিষ্ট্য, ইবাদতের ক্ষেত্রে সময়ের মূল্য, প্রাকৃতিক কার্যাবলী থেকে সময়ের শিক্ষাগ্রহণ, দৈনন্দিন জীবনের সময়ের মর্যাদা ও ব্যবহার । একই সাথে অবসর সময় কাটানোর কুরআন ও সুন্নাহ সমর্থিত পথ এবং পন্থা।

নবীজি (স:) একজন বিবেকবানের জন্য সময়কে ৪ টি ভাগে ভাগ করেন।
১.একটা সময় সে তার রবের কাছে চাওয়া-পাওয়ার কথা বলবে
২.একটা সময় সে নিজেকে মূল্যায়ন করবে
৩.একটা সময় আল্লাহর সৃষ্টি নিয়ে ভাববে
৩.আর একটা সময় তার খাবার পানীয়েরর জন্য খালি রাখবে

সময়কে আমরা অতীত, বর্তমান, ভবিষ্যৎ তিন ভাগে ভাগ করতে পারি। আমরা জানি কোন জাতি তার ভবিষ্যতকে , বর্তমান ও অতীত থেকে আলাদা করতে পারে না। মানুষের জীবনে সময়ের তিনটি ধাপই গুরুত্বপূর্ণ। তাই গ্রন্থে সময়ের তিনটি ধাপের বিস্তারিত ব্যাখ্যা এবং মূল্যায়ন করা হয়েছে।

ইহকালীন সময়ের সঠিক ব্যবহার কিংবা শরীয়া মোতাবেক সময়ের ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষ তার ঈমান বৃদ্ধি করতে পারে যার মাধ্যমে সে কর্মনিষ্ঠ ও সৎ ব্যাক্তিকে পরিণত হতে পারে। যার ফলশ্রুতিতে আল্লাহর কাছ থেকে বহুল প্রতিদান লাভ করা সম্ভব।

দুনিয়ার জীবন ক্ষণস্থায়ী আর আখেরাত চিরস্থায়ী। আর তাই সকল মুমিনের কর্তব্য আখেরাতের জন্য পাথেয় সংগ্রহ। মানুষ তার ইহকালে এমন কিছু রেখে যেতে পারে যার ফলে পরকালেও তা আমলনামায় সাওয়াব যুক্ত হতে থাকে ।এমন সব বিষয়ের উল্লেখ রয়েছে গ্রন্থের সর্বশেষ অনুচ্ছেদ মানুষের দ্বিতীয় জীবনে।সর্বোপরি মানুষ কিভাবে তার হায়াত লম্বা করতে পারে এবং মৃত্যুর পরও জীবন কিভাবে বিলম্বিত হয় এই বই পাঠের মাধ্যমে পাঠক টা জানতে সক্ষম হবেন।এ প্রসঙ্গে ইমাম মুসলিম আবু হুরাইরা(রা:) থেকে আল্লাহর রাসূলের(স:) একটি হাদিস বর্ণনা করেন-
“আদম সন্তানের মৃত্যুর সাথে সাথে আমলনামা বন্ধ হয়ে যাবে। তবে তিনটি বিষয় ছাড়া; সাদকায়ে জারিয়া ,উপকৃত হওয়া যায় এমন জ্ঞান এবং সৎকর্মশীল সন্তান, যে তার জন্য দোয়া করে।”

‘মুমিন জীবনে সময়’ বইটি প্রত্যেক মুমিনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সময়কে ধারণ করে , সময়ের কাজ সময়ে করার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি পূর্ণাঙ্গ মুমিন হতে পারে।ইসলামের প্রতিটি বিধান সময়কে গুরুত্ব দিয়ে করা হয়েছে। প্রতিটি ইবাদতের নির্দিষ্ট সময় রয়েছে । তাই সময় না মেনে ইবাদত করলে তা গ্রহণ যোগ্য হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। সে ক্ষেত্রে নিজেকে আল্লাহর কাছে সময়মত উপস্থাপনে সময়ের সঠিক জ্ঞান নিয়ে ইবাদত পালনের ক্ষেত্রে এই বইটি অবশ্যই সহায়ক হবে বলে আমি মনে করি।

আজ বিশ্বজুড়ে মুসলিমরা তাদের সময়গুলো অবহেলায় নষ্ট করছে।ফলশ্রুতিতে তাদের জীবন নির্লিপ্ত এবং নির্বুদ্ধিতার পর্যায়ে নেমে আসছে।যার পরিনতি আমরা দেখতে পাই দুনিয়াজুড়ে মুসলমানদের অসহায় অবস্থান।

যার অন্যতম কারণ সময় সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকা। আর তাই সময় সম্পর্কে সঠিক ধারণা দিতে, সময়কে সঠিক কাজে লাগাতে এবং সময় মত নিজেকে আল্লাহর কাছে উপস্থাপন করতে গ্রন্থটি গুরুত্বপূর্ণ।

কুরআন ও শরীয়াহ মোতাবেক সময়ের কাজ সময়ে করা যেমন সময়মত সালাত আদায়, যাকাত দেওয়া, হয , রোজা পালন , মানুষের পূর্ণাঙ্গ জীবন সব সময়ের এর অধীন।

এছাড়া সময় অপচয় না করে অবসর সময়কে আল্লাহর জিকিরের কাজে লাগানো, সর্বাবস্থায় আল্লাহর নৈকট্য লাভের চেষ্টা প্রভৃতি বিষয় জানা একান্ত প্রয়োজনীয় বলে আমি মনে করি। সেই সব বিষয়ের বিচার-বিশ্লেষণ ব্যাখ্যা এবং আলোচনা করা হয়েছে এই বইটিকে যা একজন মুমিনের অন্তরাত্মাকে সজাগ করে আলোর পথ দেখাতে সহায়ক হবে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন-
“তোমরা সময়কে গালি দিও না। কেননা আল্লাহ নিজেই সময় (তিনি সকল রীতি নীতির উদ্ভাবক এবং সঞ্চালক)।”সহিঃ মুসলিম ৫৭০১

মুমিন জীবনে সময় মানেই নিজের মুক্তির পুরস্কার নিশ্চিত করে নেওয়ার সুযোগ।তিনিই সফল যিনি এই সময়কে সঠিকভাবে উপলব্ধি করতে পেরেছেন এবং এর যথাযথ ব্যবহার করতে পেরেছেন। আর সময়কে কুরআন ও সুন্নাহ সমর্থিত পথে কাজে লাগাতে আমাদের সহায়ক হবে মুমিন জীবনের সময় গ্রন্থটি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!