Currently set to Index
Currently set to Follow
Books

ডোপামিন ডিটক্স বই বাংলা pdf ebook

সফল ডেটক্সের জন্য তিনটি ধাপ: এই অংশে, আমরা এমন তিনটি সহজ ধাপের মধ্য দিয়ে যাবো; যার মাধ্যমে সফলভাবে ডোপামিন ডিটক্স ব্যবহার করা যায়।

ধাপ-১: আপনার সবচেয়ে বড় বিক্ষিপ্তকারী উপাদান কে চিহ্নিত করবন কার্যকরভাবে ডোপামিন ডিটক্স বাস্তবায়নের প্রথম ধাপটি হলো- আপনাকে সবচেয়ে বেশি প্রলোভিত করা এবং বিক্ষিপ্ততায় ফেলে দেওয়া উপাদান চিহ্নিত করা। এমনটা করার জন্য, একটি কলম এবং একটি কাগজ নিন (অথবা আপনার কর্ম পদক্ষেপ ব্যবহার করুন) এবং দু’টি ঘর তৈরি করুন। একটি হবে ‘পারি’ এবং অন্য ঘরটি হবে ‘পারি না’-এর। প্রথম ঘরে সেসব জিনিস লিখুন, যেসব কাজে আপনি আপনাকে সংযুক্ত করতে চাইবেন। এটি হতে পারে হাঁটতে বের হওয়া, দিনলিপি লিখন, কোনো প্রকল্পে কাজ করা বা বই পড়া। দ্বিতীয় ঘরে সেসব জিনিস লিখবেন, যেসব আপনি অবশ্যই এড়িয়ে যাবেন- তাও আপনার ডোপামিন ডিটক্স এর কাজ চলাকালীন। এটি হতে পারে: ইউটিউবে ভিডিও দেখা, মেইল পড়া ব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করা।

এ-ব্যাপারে আপনাকে সাহায্য করতে, নিজেকে নিচের প্রশ্নগুলে জিজ্ঞেস করুন: আমি যদি এমন একটি কাজ করা ছেড়ে দিতে চাই, সেটি কোন হবে- যা আমার লক্ষ্যবিন্দুতে দৃষ্টিপাত করা সহজ করে তুলবে এবং আম উৎপাদনশীলতা নাটকীয়ভাবে বাড়িয়ে দিবে? নির্দিষ্টভাবে লক্ষ্য’কে স্পষ্ট করার জন্য, আমার কোন কাজটি এড়িয়ে চলা উচিত; যা আমাকে সাহায্য করবে? এসব প্রশ্ন ততক্ষণ করতে থাকুন, যতক্ষণ না যেমন প্রশ্নের উত্তরে আপনি খুশি হচ্ছেন। যখন আপনি একবার আপনার তালিকা সম্পন্ন করে ফেলবেন, এরপর- সেই তালিকা’কে আপনার টেবিলের উপর লাগিয়ে দিন বা অন্য কোথাও টাঙ্গিয়ে দিন; যাতে তা সবসময় আপনার চোখের সামনে থাকে। এটি দারুণভাবে আপনাকে সেসব কাজগুলোকে এড়িয়ে চলার কথা স্মরণ করিয়ে দেবে- যা অবশ্যই সেই তালিকায় রয়েছে।

ধাপ-২: সংকল্পী হোন সাধারণভাবেই বলা যায়- সবথেকে কঠিন কাজগুলোয় হস্তক্ষেপ করতে, সবার’ই না-পরিমাণ ইচ্ছে থাকে! আবার কম কাজে অর্জনও কম। আর এজন্যই, আপনাকে অবশ্যই আপনার পরিবেশকে নতুনভাবে গুছিয়ে নিতে হবে; যাতে করে, অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যবহারে জড়িয়ে পড়া আরো বেশি কঠিন হয়; পাশাপাশি, কাঙ্ক্ষিত ব্যবহারের সাথে, শুরুর যাত্রা যাতে সহজ হয়। যেসব অভ্যাস অথবা কার্যাদি আপনি ত্যাগ করতে চান- সেগুলো দেখুন এবং নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, “কীভাবে সংকল্পী হবেন”- যত সংকল্পী, তত ভালো। উদাহরণস্বরূপ: আপনাকে বিক্ষিপ্ত করার ব্যাপারে যদি আপনার মোবাইল সবথেকে বড় মাধ্যম হয়ে থাকে, তবে সব নোটিফিকেশন বন্ধ করে দিন অথবা এরোপ্লেন মোডে রেখে দিন। এর থেকেও ভালো হয়- যদি বন্ধ করে, অন্য কক্ষে রেখে আসা যায়।

ডোপামিন ডিটক্স বই রিভিউ

আপনার বিক্ষিপ্ততার ব্যাপারে যদি ফেইসবুক দায়ী হয়ে থাকে- তবে, যতগুলো নোটিফিকেশন সম্ভব মোবাইল থেকে সরিয়ে দিন অথবা এমন এপ্স ব্যবহার করুন- যা এসবকে বন্ধ রাখবে। ডোপামিন ডিটক্স যদি আপনি ঘন্টার পর ঘন্টা ইউটিউবে ভিডিও দেখে কাটিয়ে তবে, ডি, এফ, টিউব ব্যবহার করতে পারেন। নেভিগেটারে পেয়ে যাবেন অথবা অ্যাপ-ই নামিয়ে নিন। এটি রূপ নোটিফিকেশন সরিয়ে দিবে।

এরপর , নির্দিষ্ট ভিডিও দেখতে থাকুন। সংকল্পী হওয়া, ব্যাপারটা খুবই সহজ শোনারের। ভাল, এটি বেশ কার্যকরী। এর মূল কারণ। মানুষ হিসেবে, আমরা জন্মগতভাবেই আপন। আমরা ততক্ষণ শক্তি অপচয়’কে ঘৃণা করি- যতক্ষণ না আমাদের বাধ্য কর হচ্ছে। যদি আপনাকে আপনার মোবাইলটি আনার জন্য, অন্য একটি ককে যেতে হয় (বাধা ॥১) এবং সাথে তা চালুও করতে হয় (বাধ্য #9); তপন তা আর খুব শীঘ্রই করতে ইচ্ছে করবে না। আমি যখন আমার সঙ্গে, গুদাম ঘরে রেখে আসি- এরপর তা আনার জন্য, আমায় যা যা করতে হয়। বাসা থেকে নামতে হয় (বাধা ॥১) লিফট দিয়ে ৪ তলা নিচে যেতে হয় (বাধা #2) চারটি দরজা খুলতে হয় (বাধা ॥৩, বাধা 118, বাধা ॥e এবং বাধ্য #৬); আমার মডেম পর্যন্ত পৌঁছাতে মডেম হাতে নিয়ে, আবার একই কাজের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে হয় (বাধ্য #৭ থেকে #১২) সংকল্পী হওয়ার এটি’ই দারুণ ব্যাপার। যখন আমার শক্তি ব্যয় করে, মডেম-কে গুদাম থেকে ফেরত আনতে হবে আমার মন সরাসরি কাজটি করতে চাইবে না। এটি শক্তির সেরা অপচয়; যা মন কোনোভাবেই পছন্দ করে না। মূল কথা হলো: আপনি আপনার অবাঞ্চিত বস্তুগুলোকে যতদূরে রাখবেন, আপনার জন্য তা তত ভালো হবে।

বিপরীতভাবে, আপনার কাঙ্ক্ষিত বস্তু বা ব্যবহার’কে যতটা পারবেন সহজলভ্য করে তুলবেন। উদাহরণস্বরূপ: আমার লেখালেখি’কে সহজ করে তোলার জন্য সকালে আগে মোবাইল ধরা এড়িয়ে চলি, মেইল পড়া বন্ধ রাখি এবং কম্পিউটারে ওয়ার্ড প্রসেসর খুলে রাখি। এরপর, আমি প্রায়শই ‘প্রশান্তময় গান’ শুনি এবং টাইমার চালু করে দেই (আমি ৪৫ মিনিট করে কাজগুলোর পর্ব ভাগ করে নেই)। আর এভাবেই, আমি আমার মনের সাথে সংঘর্ষ বাদ দেই এবং মানসিকতার সঠিক পরিবেশ তৈরি করি। আর হঠাৎ গান শোনা বন্ধ করে দিয়ে, টাইমার বন্ধ রেখে অন্য একটি কাজে লাফ দেওয়ার তো কোনো মানে হয় না! আমার মন ব্যাপারটি’কে শক্তির অপচয় হিসেবেই ধরে নিবে। অবশ্য আমিও গড়িমসি করি। তবে, মনের বিরোধ সরিয়ে এবং সাধারণ কার্য তালিকার মাধ্যমে; আমি এই গড়িমসি হওয়ার সম্ভাবনাকে অনেকটা’ই কমিয়ে দেই। এখন আপনার পালা। আপনি আপনার অবাঞ্চিত কার্যাদি এবং ব্যবহার’কে দূর করতে, কীভাবে মনের বিরোধিতা করবেন? আপনি যা ‘পারবেন না’ তার তালিকা দেখুন।

প্রতিটার পাশে, নির্দিষ্ট কিছু বাধা যুক্ত করে দিন। এরপর আপনার ‘পারবেন’ তালিকার দিকে তাকান; এবং সেসব মনো- বিরোধ বা বাধা লিখে ফেলুন, যা আপনি এড়িয়ে চলবেন বা বাদ দিবেন। ধাপ-৩ সকাল যেভাবে শুরব করবেন তৃতীয় এবং সর্বশেষ ধাপটি হলো- সাধারণভাবে শুরু করে দিন। আমি আপনাকে পরামর্শ দিবো যে, আপনি সকাল সকাল’ই শুরু করুন; অতি-উচ্চ উন্মত্ততায় ডুবে যাওয়ার পূর্বেই। আমি খেয়াল করেছি যে- যদি আমি ঘুম থেকে উঠেই মোবাইলে হাত দেই অথবা অনলাইনে ঢুঁ মারি; তবে আমার মন সত্যিকার অর্থেই বিক্ষিপ্ত হয়ে যায়।

Dopamine detox book bangla pdf ebook

আমি পরামর্শ দিবো যে- এমন একটি দৈনিক কার্যতালিকা তৈরি করুন, যা আপনাকে ইতিবাচক এবং শক্তিশালী কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছে দিবে। দীর্ঘসময়ের জন্য, একটি সাধারণ সকাল বেলার কার্যতালিকা আপনার জীবনে খুব বড়-সড় পার্থক্য তৈরি করে.

ডোপামিন ডিটক্স বই বাংলা pdf ebook link- click here

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!