Bangla islamic book pdf free downloadBest Bangla Pdf Book List 01

ফেরা pdf book download

ফেরা সিহিন্তা শরীফা PDF Book download | ফেরা পিডিএফ ডাউনলোড

বইয়ের নাম: ফেরা
লেখিকাঃ সিহিন্তা শরীফা এবং নাইলাহ  আমাতুল্লাহ
সম্পাদনাঃ শরীফ আবু হায়াত অপু
মোট পৃষ্ঠা – ১২০

ফেরা বই রিভিউঃ

– আচ্ছা বাবা, বলোতো কোনটা ঠিক – ইসলাম নাকি খ্রিস্টধর্ম?

– বড় হয়ে নিজে নিজে পড়াশোনা করে জেনে নিও।

মনের মাঝেই গেঁথে নিয়েছিলাম কথাটা। কয়েকদিন ধরে মাথায় কিছু প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল যার উত্তর কিছুতেই মেলাতে পারছিলাম না আমি।

ঈশ্বর কেন আমাদের সৃষ্টি করেছেন?

যখন কোন কিছুই ছিল না,  তখন কী ছিল?

মহাবিশ্ব শুরুর আগে কী ছিল? কেনই বা শুরু হল?

ঈশ্বরকে কে সৃষ্টি করেছে?

কেন  মানুষের জীবনে এত কষ্ট দেন ঈশ্বর?

কেন এতগুলো ধর্ম পৃথিবীতে?

উত্তরগুলো একদিন নিজে পড়াশোনা করে খুঁজে বের করতে হবে। কবে যে বড় হবো! (৫, পৃঃ ১৬)

উদ্বৃত্ত অংশটুকু ‘ফেরা’ নামক অসাধারণ এক অটোবায়োগ্রাফি’ থেকে নেয়া।

ফেরা মানে ফিরে আসা। অন্ধকার থেকে আলোতে, মন্দ থেকে ভালোতে, মিথ্যা থেকে সত্যে, অবিশ্বাস থেকে বিশ্বাসে।

ফেরা বইটিতে কঠিন এক বাস্তবতার গল্প, এক নতুন শাশ্বত অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়ার গল্প বলা রয়েছে। দুই বোনের গল্প, শাশ্বত ধর্মে ফিরে আসার, ‘কর্নেলিয়া স্টেফানি ম্যান্ডেয’ থেকে ‘সিহিন্তা শরিফা’ এবং ‘নাইলাহ আমাতুল্লাহ’ হয়ে উঠার গল্প। পরিপূর্ণ দ্বীন খুঁজে পাবার এক কঠিন সংগ্রামী জীবনী উঠে এসেছে লেখায়।

কিভাবে মা, বাবা নিজ জন্মসূত্রে পাওয়া ধর্ম, সমাজ ত্যাগ করে অন্য এক অচেনা ধর্মে নিজেকে সঁপে দেয়া যায় তা বলা আছে। বইটি পড়া শুরু করলে প্রথম পাতা থেকে শেষ পাতা পর্যন্ত ডুবে থাকবেন বইয়ের মাঝে ধীরে ধীরে প্রবেশ করবেন অন্য এক জগতে। এটা এক দীর্ঘ এডভেঞ্চার! আমার অনেক জায়গায় পড়তে গিয়ে চিন্তার খোরাক জুগিয়েছে । কোথাও আবার শিহরন জেগেছে। কখনওবা দম বন্ধ হয়ে এসেছে, কান্না করতে ইচ্ছে করেছে।

বিশেষ করে যখন প্রথম সিজদাহ দেওয়ার অংশটুকু পড়লাম মনটা কেমন যেন হুঁহুঁ করে কেঁদে উঠলো। ইশ কত অযত্নে, অবহেলায় আমার প্রভুর কুদরতি পায়ে সিজদাহ করেছি অথচ এর মাহাত্ম্য কোনদিন অনুধাবনের চেষ্টা করিনি।

শত সংগ্রামের পর, বন্ধুর পথ পাড়ি দিয়ে ‘মালিকের’ সান্নিধ্যে আসতে পারাটাই জীবনের সার্থকতা। দুবোনের হিদায়াতের গল্প আপনাকেও ভাবিয়ে তোলবে, বিবেকে নাড়া দিবে, অনেক প্রশ্ন জাগাবে। আমার অন্তত তাই হয়েছে।

দুই বোনের রুদ্ধশ্বাস ‘ফেরা’র পরিক্রমায় স্বাগতম আপনাদেরকে। বইটি না পড়া থাকলে পড়ে দেখতে পারেন। ভালো লাগবে আশাকরি।

review 2:
বইঃ ফেরা
– সিহিন্তা শরীফা
– নাইলাহ আমাতুল্লাহ
*মসজিদে আযান শোনা গেলে আমিও আযান দেওয়া লোকটার সাথে সাথে গাইতাম।মা ধমক দিয়ে চুপ করিয়ে দিতেন কেন বুঝতাম না। শুনেছিলাম মা নাকি ছোটবেলায় আযান শুনে ভয় পেতেন।

*- আচ্ছা বাবা, বলো তো কোনটা ঠিক – ইসলাম না খ্রিষ্টধর্ম?
– বড় হয়ে নিজে পড়াশোনা করে জেনে নিয়ো।

* ও হ্যা আমার বাবা ছিলেন নামে মাত্র মুসলমান, আর মা ছিলেন একজন খ্রিষ্টান।  আর আমিও একজন খ্রিষ্টান, রোমান ক্যাথলিক।

* কোন ক্লাসে পড়ি তখন মনে নেই।  গির্জায় এক ভিনদেশি ধর্মযাজক এসেছেন। তার বিশেষ আধ্যাত্মিক ক্ষমতার প্রভাবে তার কাছে আশীর্বাদ নিতে গিয়ে মানুষ সংঙ্গা হারিয়ে ফেলে। দূর দূর থেকে সব খ্রিষ্টানরা এসেছে ফাদারের কাছে ‘স্পেশাল ব্লেসিং’ নিতে। লাইন ধরে সবাই তার কাছে যাচ্ছে আর তিনি মাথার ওপর হাত দিয়ে বিড়বিড় করে কি যেন পড়েছেন আর মানুষটা জ্ঞান হারিয়ে পড়ে যাচ্ছে।
পরে বাবা থেকে শুনলাম লোকটার হাতে নাকি ক্লোরফর্ম জাতীয় কিছু একটা ছিলো যা নাকের কাছে নিতেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।।
সেইদিন ভাবছিলাম কেন এই প্রতারণা!  এতগুলো মানুষকে বোকা বানানো?..

* খ্রিষ্টান নান বা সিস্টার যারা ধর্মের নিয়ম অনুযায়ী সন্ন্যাসীর মতো জীবনযাপন করে। পরিবার থেকে আজীবন অবিবাহিত থেকে “খ্রিষ্টের সেবায়” সারাটি জীবন পার করে দেয়। দুষ্ট মেয়েরা বলত, অধিকাংশ সিস্টার নাকি প্রেমে ব্যর্থ হয়ে এই পথা আসতো!.

* আমার দৃষ্টিতে ইসলাম বরাবরই বর্বর ধর্ম। এরা বছরের একটি বিশেষ দিনে হাজার হাজার পশু হত্যা করে উৎসব পালন করে।যুদ্ধ করে মানুষ মেরে উল্লাস করে,বহুবিবাহ বাল্যবিবাহ বৈধ মনে করে। মেয়েদের এরা মানুষ মনে করে না।পর্দার নামে জোর করে নিনজা টাইপ পোষাক পরিয়ে বন্দী করে রাখা হয়।
কিছু নিম্নশ্রেণীর অশিক্ষিত বুদ্ধিহীন লোকজন এই ধর্ম নিজেদের জীবনে মেনে নেয়। ইসলাম পালনকারী মুসলীমরা হয় জঙ্গী না হয় রাজাকারের দল।
—–
খ্রিষ্টধর্ম দীক্ষিত একজন বোন কিভাবে ইসলামের পথে ফিরে এসেছেন। যার মনের ভিতরে কিভাবে ইসলামের আলো জ্বলে উঠেছে। যে খ্রিষ্ট অধ্যুষিত এলাকায় নিজেকে সবার থেকে আড়াল রেখে ইসলামের পথে ফিরে এসেছেন। দুইটা গল্প নিয়ে “ফেরা” বইটা রচনা করা হয়েছে। অন্ধভক্তি সত্যি অন্ধ করে দেয় মানুষকে।
———–

ফেরা ইসলামিক বই pdf download: click here

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!