Best Bangla Pdf Book List 01Marketing Bangla Book PdfMunir Hasan books pdf download

ইমোশনাল মার্কেটিং মুনির হাসান Pdf Download

Emotional marketing by munir hasan pdf Download

বইয়ের নামঃ ইমোশনাল মার্কেটিং
লেখকঃ মুনির হাসান
১ম প্রকাশ: ২০২০ বইমেলা

ইমোশনাল মার্কেটিং বই রিভিউঃ

অনেকদিন বই পড়া আর রিভিউ ও লেখা হয় না। এই কোয়ারেন্টিনের সময়টায় বই পড়ার চেয়ে উপযুক্ত সময় আর হয় না। তাই এই বইটা সম্প্রতি পড়ে শেষ করলাম। এই বইটা সম্পর্কে একটি কথা বলি, যারা মার্কেটিং নিয়ে পড়াশোনা করছেন না তারাও এটি পড়ে বেশ মজা পাবেন কারণ বইটিতে বিভিন্ন ইন্টারেস্টিং ঘটনার বর্ণনা, দারুণ কিছু বিজ্ঞাপনের লিংক দেয়া আছে।।।।

লেখক munir hasan বইটিকে ৪টি পর্বে বিভক্ত করেছেন।
১ম পর্বে মূলত প্রধান আলোচনা গুলো রয়েছে। এই অংশে, বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন গুলো সম্পর্কে বলা হয়েছে। যেমনঃ হালাল সাবান, হিজাব রিফ্রেশ শ্যাম্পুর কথা। এছাড়াও টাইটান ঘড়ির ‘Joy of Gifting’ টাইটেলের একটি বিজ্ঞাপন যেখানে একজন শিক্ষককে অভিনব পদ্ধতিতে ঘড়ি গিফট করার কথা। তাছাড়াও বাটা কোম্পানির এনিমেশন টাইপ বিজ্ঞাপনের কথা, “হাটি হাটি পায়ে পায়ে দেখোনা” যেটি ওইসময় word of mouth এ পরিণত হয়েছিল যা অন্যকথায় Buzz Marketing ও বলা যায়।

২য় পর্বে রয়েছে ইমোজির আলোচনা। যদিও এই চাপ্টার টা পড়ার সময় অতটা আগ্রহ খুজে পাইনি। কারণ এ প্রজন্মের কাছে ইমুজি নতুন কিছু নয় কারণ ওরা প্রতিনিয়ত এটার ব্যবহার করছে। এটাতে এভাবে বিশ্লেষণ করা হয়েছে যে,
আমি অপেক্ষা করতে পারব না
আমি অপেক্ষা করতে পারব না 😁
এই ২টা বাক্য পড়ার সময় দুইরকম অনুভূতি প্রকাশ পায়। এখানে এছাড়াও ইমেইলেও ইমুজি ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে যা কিছুটা খটকা লেগেছে কারণ আমি যতদুর জানতাম, ইমেইলে ইমুজি ব্যবহার করতে হয় না।

যাইহোক, ৩য় পর্বে রয়েছে ৪টা কেইস স্টাডির কথা। ১মটি হলো, কোক এর, I’d like to buy the world a coke এই গানটি কতটা প্রভাব ফেলেছিলো।  ২য়টি হলো, শেভ ক্লাবের একটি বিজ্ঞাপনের কথা এবং এটির প্রভাব।
৩য়টি হলো, Jetwest এর ‘Crismass Miracle’ নামক একটি ক্যাম্পেইনের কথা যেটি গ্রাহকের মধ্যে অভুতপূর্ণ সাড়া জাগিয়েছিলো। এবং সর্বশেষ টি হলো, বাংলাদেশের ক্রাউন সিমেন্টের যেখানে ছিলো, ইউর কান্ট্রি, মাই সিমেন্ট স্যার। যা প্রবাসীদের নিজ দেশের প্রতি আবেগ অনুভূতি গুলো প্রকাশ করেছিলো।

৪র্থ বা সর্বশেষ পর্বে রয়েছে, ফেসবুকে মার্কেটিং এর কথা। প্রথমেই পেইজে পেইড প্রমোশনে না গিয়ে নিজেদের নেটওয়ার্কের মধ্যে সেটি ছড়িয়ে দেয়া এমনভাবে যেন সেটি মার্কেটিং এর উদ্যেশ্য করা হচ্ছে সেটি যেন বোঝা না যায়।।

সর্বোপরি, ভালোই লেগেছে… অন্তত রিডার্স ব্লক থেকে কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করেছে!!

রিভিউ ২:
ইমোশনাল মার্কেটিং
আদর্শ প্রকাশনী
মুনির হাসান
মূল্য ২২৫/-
রেটিংঃ ৯/১০

চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের যে ধারণা সেটা সব কাজের গতিকেই যেন সাবধান করে দিয়েছে এমনে চললে হবে না আরো গতি দাও!

আমি মার্কেটিং এর ছাত্র না তবু জানার কৌতহল ছিল এর মূলধারা ও বিষয়বস্তু সম্পর্কে।

“নিজের ঢোল নিজেই পিটাও,অন্য কেউ এসে পিটিয়ে দিবে না”। অতএব যদি কেউ নিজের বানানো বা সাধের কোন পণ্য বা সেবা যদি বাজারজাত করতে চাও তবে তো ভোক্তা সাধারণের নজর টানতে হবে। যা অতীব জরুরি।

বই থেকে আমার প্রাপ্তিঃ
বই খানা না পড়লে মার্কেটিং এর ধারণা পরিষ্কার হতো না। আবেগ কে কাজে লাগিয়ে কিভাবে অন্য পথের পথিক কে তুমি নিজের দিকে টানবা তার জন্য বুদ্ধি খাটাও। নিশ্চয় আসবে।

সানসিল্কের সেই হিজাব রিফ্রেশ শ্যাম্পু কিংবা কোকাকোলার সেই হৃদয়হরণ করা বিজ্ঞাপনের পেছনে লুকিয়ে আছে আর্ট।

ইমোজি বা ইমোটিকন এর ব্যবহার ও মার্কেটিং কে আর বেশি প্রাণোচ্ছ্বল করে তুলতে পারে। যেখানে বোঝাপড়া হবে শুধু বিজ্ঞাপনদাতা ও ক্রেতার মধ্যে। ইমোজি দিয়েই ক্রেতা বুঝতে পারবেন কি মেসেজ দিতে চাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি বা কেন পণ্য টি তার জন্য প্রয়োজন।

সব ‘না’  কিন্তু খারাপ নয় এখানেও একটা মেকানিজম আছে যেখানে পরোক্ষভাবে বুঝিয়ে দেয়া হচ্ছে নির্দিষ্ট কোন উপাদান না থাকায় কনজ্যুমার কিভাবে উপকৃত হচ্ছে।

review ৩:

বুক রিভিও: ইমোশনাল মার্কেটিং
লেখক: মুনির হাসান

মার্কেটিং ‘এ ইমোশন!!! এটা আবার কিভাবে? হ্যা ভাই, মার্কেটিং,এ ইমোশনের চমৎকার সব ব্যবহার আছে। দেশী-বিদেশী বড় বড় কোম্পানি গুলো তাদের পণ্য বা সেবার প্রচারে গ্রাহকদের এই ইমোশনকে কাজে লাগায় যা এই বইটিতে সুন্দরভাবে তুলে ধরেছেন লেখক মুনির হাসান।

বইটি ৩টি পর্বে  বিভক্ত। যার প্রতিটি পর্বই মুগ্ধতা যুগিয়েছে  আর নতুন কিছু জানতে পেরেছি যা একজন বিজনেস স্টাডির স্টুডেন্টস সহ সকল স্টুডেন্টস থেকে শুরু করে মার্কেটারদের কাজে লাগবে।

যুগে যুগে গ্রাহকের ইমোশনকে কাজে লাগিয়ে কোম্পানি গুলো তাদের মার্কেটিং স্ট্রাটেজি ঠিক করে গিয়েছেন। আর বর্তমানে আমাদের প্রতিনিয়ত  ব্যবহৃত ইমোজি’র ইমোশনাল মার্কেটিং’এ ব্যবহারের আইডিয়া গুলো উল্লেখ আছে এই বইটিতে।

বইটি কয়েকটি চ্যাপ্টারে বিভক্ত তার মধ্যে অন্যতম কিছু হলো,
হালাল সাবানের মোজেজা, যেখানে আরোমেটিক বিউটি সোফ নামের একটি সাবান প্রস্তুতকারী কোম্পানি গ্রাহকের ইমোশনকে কাজে লাগিয়ে “হালাল সাবান” নামে একধরণের সাবান বাজারে আনে যার ব্যাপক সাড়া পাওয়া যায়।

ইমোজির উৎপত্তি, মার্কেটিং’এ কোথায় কোন ইমোজি ব্যবহার করবেন মোট কথায় ইমোজির নারি নক্ষত্র আছে বইটিতে।

এরপরের কিছু চ্যাপ্টার হলো, মেয়েদের মতো, আবেগ দিয়ে যায় চেনা, ইমোশনাল মার্কেটিং কেন কাজ করে, ইমোজির ব্যবহার,  দুঃসংবাদ বাতাসের আগে ধায়, মার্কেটিং’এর সঠিক কৌশল আরো রয়েছে বিভিন্ন কেস স্টাডি।

বইটি একইসাথে অনেক তথ্যবহুল। এখানে ইমোশনাল মার্কেটিং ‘এর বাস্তব চিত্র বোঝার জন্য কিছু বিজ্ঞাপনের ইউটিউব লিংক ও স্ক্যান কোর্ড দেওয়া আছে।

বইটির প্রচ্ছদ থেকে শুরু করে সব কিছুই আমার কাছে বেস্ট মনে হয়েছে। আমার মতে বইটি সব মার্কেটার, স্টুডেন্ট, কোম্পানির জন্য পড়ার মতো একটি বই। কারণ বাংলাদেশে ইমোশনাল মার্কেটিং নিয়ে লেখালেখি খুব একটা নেই বললেই চলে।

আদর্শ প্রকাশনীর এই বইটির মুদ্রিত মূল্য
২৬৭ টাকা।

Review 4:
বইঃ ইমোশনাল  মার্কেটিং
লেখকঃমুনির হাসান
পাতাঃ১২৫
দামঃ ২৬৭

আবেগ  প্রতিটি নর নারীর আছে, এই আবেগ কে কাজে লাগিয়ে কি ভাবে ব্যাবসায় সফল হওয়া যায় এ নিয়ে লেখা।তবে আমার কাছে তেমন ভাল লাগে নি, শুধু কিভাবে ইমুজি ব্যাবহার করতে হয় এইটাই ভাল লেগেছে। ফেসবুকে আমরা ইমোজি ইউজ করি না এমন মানুষ হয়তো নেই। ইমোজি এক ধরনের ভাষা। ১৯৯৯ সালে ১৮০টি ইমোজি করে জাপান। ২০১৮ সালে যার সংখ্যা ২৮২৩টি। ২০১৫ তে ইমোজিটি হয়েছে বর্ষসেরা শব্দ। ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস।আরও একটা কথা, ইমোজি ইউজ করলে ফেসবুকে ৬৭ ভাগ লাইক, ৩৩ ভাগ কমেন্ট ও ৩৩ ভাগ বেশি শেয়ার।বইটাতে ৪টি পর্ব আছে। প্রতিটিই বেশ তথ্য বহুল। মজা করে লেখা, অনেক জায়গাতে স্ক্যান বার ও লিংক আছে (সেগুলো দেখা হয় নি, দেখবো ইনশাআল্লাহ।অনলাইনে কাজ করতে গেলে আপনাকে বলব বইটি কাছে নিন। সাথে গ্রোথ হ্যাকিং মার্কেটিং নিতে পারেন।ফেসবুক ইউজ করার জন্য এগুলো বলা। আরও অনেক তথ্য জানতে পড়তে পারেন ” ইমোশনাল মার্কেটিং।যারা ব্র‍্যান্ডিং ও মার্কেটিং নিয়ে জব করেন, অনলাইনে বিজনেস করেন, অনলাইনকে জানতে চান, বড় কোম্পানি নিয়ে জানতে চান তারা পড়ে নিন, কাজে দিবে হয়তো।

ইমোশনাল মার্কেটিং Pdf Download link: click here

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!